ঝালকাঠিতে শ্বাসরোধে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ, স্বামী পলাতক

মো. নাঈম ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠিতে পারিবারিক বিরোধের জেরে পারভিন আক্তার নামে (২৫) এক গৃহবধূকে পিটিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (১৩অক্টোবর) সকালে সদর উপজেলার বেরমহল গ্রামের বাড়ি সংলগ্ন একটি ডোবা থেকে তাঁর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।পুলিশ স্থানীয়রা জানায়, ঝালকাঠি সদর উপজেলার বেরমহল গ্রামের মৃত আবু হানিফের ছেলে তানজিল হাওলাদারের সঙ্গে বিয়ে হয় চাঁদপুর সদরের কল্যাণদি এলাকার জিন্নাত আলী মোল্লার মেয়ে পারভিন আক্তারের। তাদের ১৮ মাস বয়সী এক কন্যা সন্তান রয়েছে। এক বছর ধরে স্বামী শাশুড়ির সঙ্গে বিরোধ চলছিল ওই গৃহবধূর। অবস্থায় একমাস আগে পারভিন আক্তার সন্তানকে নিয়ে ঢাকায় চলে যায়। কিছুদিন আগে তিনি জানতে পারেন স্বামী তাকে খোলা তালাক দিয়েছেন। এর সত্যতা যাচাই করতে গতকাল ১২অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে তিনি স্বামীর বাড়ির পাশের একটি ঘরে ওঠেন। রাত ১১টার দিকে তাঁর ফোনে কল আসলে সে দরজা খুলে বাইরে বের হয়। এর পর থেকেই নিখোঁজ থাকে পারভীন। সকালে বাড়ির পাশের একটি ডোবা থেকে তাঁর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পারিবারিক বিরোধের জেরে রাতে পারভিনকে ডেকে নিয়ে তাঁর স্বামী হত্যা করেছে বলে ধারনা করছে পুলিশ।

খবর পেয়ে ঝালকাঠির পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন, অতিরক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) প্রশান্ত কুমার দে, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খলিলুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান জানান, গৃহবধূর শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে পিটিয়ে গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী তানজিল হাওলাদার পলাতক রয়েছে