পিরোজপুরের কাউখালীতে গৃহবধূকে মারধরের পর তরল পদার্থ নিক্ষেপ করে হাত ঝলসে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

পিরোজপুর প্রতিনিধি:  পিরোজপুরের কাউখালীতে রেকসোনা বেগম (২৬) নামে এক গৃহবধূকে পূর্বশত্রæতার জের ধরে প্রতিপক্ষরা বেধড়ক মারপিট করে তরল দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করে ঝলসে দিয়েছে। গুরুতর আহত ওই গৃহবধূকে আজ শনিবার বরিশাল শেরে বাংলা  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

আহত গৃহবধূ রেকসোনা বেগম উপজেলার পারসাতুরিয়া গ্রামের শহিদুল মীরের মেয়ে । সে পার্শ্ববর্তী ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার ওমান প্রবাসি মো. হুমায়ূন কবিরের স্ত্রী।  

আহত গৃহবধূ অভিযোগ করেন, তার স্বামী বর্তমানে ওমান প্রবাসি এ কারনে রেকসনা পিত্রালয়ে বসবাস করে আসছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে পৈত্রিক বাগানে সে জ্বালানী কাঠ সংগ্রহ করতে যায়। সেখানে পূর্ব থেকেই ওত পেতে থাকা একই গ্রামের প্রতিপক্ষ হারুন অর রশিদের স্ত্রী বিউটি বেগম এবং তার দুই মেয়ে মালা আক্তার ও নুপুর বেগম একত্রিত হয়ে তার উপর চড়াও হয় । কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষরা তাকে বেধড়ক মারপিট করে । এক পর্যায় বোতল ভর্তি উত্তপ্ত তরল জাতীয় দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করলে তার ডান হাত ঝলসে যায়। তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আজ শনিবার সকালে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ব্যাপারে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সুব্রত কর্মকার  বলেন, গৃহবধূর ডান হাত তরল দাহ্য পদার্থে ঝলছে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়েছে।

কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান,এ হামলার ঘটনায় কাউখালী থানায় আহত গৃহবধূর ভাই মিজান মীর বাদী হয়ে আজ শনিবার মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।