মঠবাড়িয়ায় হত্যা মামলার পলাতক মূল আসামী উজিরপুর থেকে গ্রেপ্তার

সোহেল, বিশেষ প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের কোপে নিহত দুলাল হাওলাদার (৩৩) হত্যা মামলার প্রধান আসামী রমজানকে গ্রেপ্তার হয়েছে। মঠবাড়িয়া থানার এসআই সরোয়ার হোসেন বুধবার (২২ জুন) রাতে বরিশাল জেলার উজিরপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় উজিরপুর শহর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত রমজান (২৩) উপজেলা দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের মৃত. আব্দর রব হাওলাদার (লাদেন মিয়া) ছেলে। এ ঘটনায় এর আগে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছেন। মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, হত্যাকান্ড ঘটার কিছুদিন আগে নিহত দুলালের ভাইপো শিশু বেল্লাল (৫) এর সাথে প্রতিবেশী রেবা বেগমের পুত্র ইফাত (১০) এর পুকুরে সাঁতার কাটা নিয়ে দুই পরবারের মধ্যে ঝগড়া হয়। পরবর্তীতে যা চরম আকার ধারন করে। ওই বিরোধের ধরে গত ৫ মে‘২২ বৃহস্পতিবার সকালে নিহত দুলালের ছোট ভাই ইজিবাইক চালক হেলাল বাড়ি ফেরার পথে প্রতিপক্ষ ওই রেবা বেগমের ভাই রমজান, ফয়সাল ও চাচাত ভাই ওমর হেলালকে মারধর করে। বিকেলে দুলাল প্রতিপক্ষের কাছে ছোট ভাই হেলালকে মারধরের কারন জানতে চাইলে কিশোর গ্যাং সদস্য রমজান (২৩), ওমর (১৭), ফয়সাল (২৮) সহ ৭-৮ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্র দিয়ে দুলালকে এলাপাথারী পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা গুরুতর আহত দুলালকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থার অবনতী দেখে দুলালকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। দুলাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এ ঘটনায় নিহত দুলালের পিতা কুটি মিয়া (ঘটক) বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (৫ মে‘২২) রাতে কিশোর গ্যাং রমজান, ফফসাল, ওমর সহ ৬ জন নমীয় ও অজ্ঞাত তিন জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। মঠবাড়িয়া থানার ওসি নূরুল ইসলাম বাদল জানান, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যাবহারের মাধ্যমে মূল আসামীর আবস্থান সনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত রামজানকে বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। হত্যা কন্ডের ঘটনায় জড়িত বাকিআসামীদের সনাক্তকরণ ও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।