ভাণ্ডারিয়া উপজেলা নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় চেয়ারম্যান সহ দুই ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত.

ভান্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি: পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় উপজেলা চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান ও নারীভাইস চেয়ার নির্বাচিত হয়েছে। আগামী ২৯ মে এ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তিন প্রার্থীর কোনও প্রতীদ্বন্দী প্রার্থী না থাকায় বিধি অনুযায়ী তারা বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হলেন। চেয়ারম্যান পদে মো. মিরাজুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ মশিউর রহমান মৃধা ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মালিকা পারভীন প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হন।

 

 এদের মধ্যে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ার পদে দুই প্রার্থী দ্বিতীয় বারের মত নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান মো. মিরাজুল ইসলাম ভাণ্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক। উপজেলা নির্বাচন দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী হয়ে ছিলেন। প্রার্থীদের মধ্যে জাতীয় পার্টি জেপির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মাহিবুল হোসেন এর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। যাচাই-বাছাইয়ে হলফ নামায় অসম্পূর্ণ তথ্য পাওয়ায় তার মনোয়ন বাতিল করা হয় । মো. মাহিবুল হোসেন জাতীয় পার্টি জেপি'ও ভাণ্ডারিয়া উপজেলা কমিটির কার্যনির্বাহী সভাপতি। তিনি গত ( ২০০৮ সাল) সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ছিলেন। বৈধ ঘোষিত প্রার্থীদের চেয়ারম্যান পদে মো.সালাহ উদ্দিন ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এহসাম হাওলাদার নির্বাচনের শেষ মুহুর্তে এসে তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন। ফলে চেয়ারম্যান পদে প্রাতিদ্বন্দী কোনও প্রার্থী না থাকা মো. মিরাজুল ইসলাম বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হলেন।

 

এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে- উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মো. মশিউর রহমান মৃধা ও নতুন নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মালিকা পারভীন এর কোনও প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী না হওয়ায় তারা দুইজন ও বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হলেন। উল্লেখ্য তৃতীয় ধাপের তফসিল অনুযায়ী ভাণ্ডারিয়ায় নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল গত ২ মে, মনোনয়ন পত্র বাছাই ছিল গত ৫ মে, মনোনয়ন পত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল ৬/৮ মে, আপিল নিষ্পত্তি ০৯/১১মে, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ছিল ১২ মে, প্রতীক বরাদ্দ ছিল ১৩ মে।

আগামী ২৯ মে ভাণ্ডারিয়ায় উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তিন পদে কোনও প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী না থাকায় নির্বাচনী আমেজ স্থবির হয়ে যায়। পিরোজপুর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাধবী রায় বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভাণ্ডারিয়া উপজেলা নির্বাচনে তিনটি পদে কোনও প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী না থাকায় বিধি অনুযায়ী বৈধ প্রার্থীরা বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হবেন।